‘ফুল টাইম পলিটিশিয়ান’ গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া

1456

ছোটবেলা থেকেই রাজনীতি মননে মানসিকতায় মিশে আছে গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়ার। ছাত্রাবস্থায় সেই যে রাজপথে দাবি আদায়ের আন্দোলনে নেমেছেন, একটি বারের জন্যেও সে পথ ছাড়েননি। নানা চড়াই-উৎরাই, টানাপোড়েন আর বাধা বিপত্তের পাহাড় ডিঙ্গিয়ে নিজের নামটা শেষ পর্যন্ত রাজনীতিবীদের তালিকায় ধরে রেখেছেন। বলা চলে ‘ফুলটাইম পলিটিশিয়ান’ গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া।

পড়াশোনা শেষ করে সাংবাদিকতাও করেছেন কিছুদিন। তবে বেশিদিন এ পেশায় থাকেননি। মিছিল আর স্লোগান শুনে যার রক্ত টগবগ করে উঠে, তাকে কি অন্য কোথাও আটকিয়ে রাখা যায়। মোস্তফা ভূঁইয়ার ক্ষেত্রেও এমনটিই ঘটেছে। ফের ছুটে এসেছেন রাজপথে। মুষ্ঠিবদ্ধ হাত তুলেছেন আবার। গলা ফাটিয়ে দাবি আদায়ের স্লোগান ধরেছেন, বক্তব্য দিয়ে নেতা কর্মীদের উজ্জ্বীবীত করেছেন।

রাজনীতির পথটি জগদ্দল পাথরে ঢাকা থাকলেও গোলাম মোস্তফা সে পথে হাঁটতে ভালোবাসেন। অনেকটা ‘কঠিনেরে ভালোবাসিলাম’ এর মতোই। বিস্তর অলিগলি মাড়িয়ে বর্তমানে তিনি নিজের অবস্থান দাঁড় করিয়েছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ-ভাসানী) মহাসচিব হিসেবে। মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর আদর্শে গঠিত এ দলটির গুরু দায়িত্ব এখন মোস্তফার কাঁধে। দেশের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্তে চষে বেড়ান সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড নিয়ে। ক্লান্ত হয়ে ফেরেন, রাতটা শেষ না হতেই আবার বেরিয়ে পড়েন। মানুষকে ডাকেন, জাগাতে চেষ্টা করেন।

দুই যুগের অধিক সময় ধরে রাজনীতি করা গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া তার রাজনৈতিক জীবনের নানা গল্প শুনিয়েছেন ‘এখন’-এর বিশেষ প্রতিনিধি রফিক রাফিকে। সে গল্পই তুলে ধরা হয়েছে এ ভিডিও আয়োজনে।

উপস্থাপনা: রফিক রাফি
ভিডিওগ্রাফি: মুজতাহিদ হাসান
সার্বিক ব্যবস্থাপনা: হাসান ওয়ালী
ভিডিও সম্পাদনা: রহমান গাজী

নির্দেশনা: মুনিফ আম্মার
লোকেশান: রমনা পার্ক, ঢাকা।