ফোনে নড়াইলের উপজেলা নির্বাচনের খবর নিলেন- প্রধানমন্ত্রী

দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতো জননেত্রী আজ আওয়ামী মনোনীত প্রার্থীদের সাথে ফোনে নির্বাচনের খোঁজ খবর নেন। ২২ মার্চ সকালে জননেত্রী আওয়ামী মনোনীত নড়াইল সদর উপজেলার প্রার্থী নিজাম উদ্দিন খান নিলুর সাথে যোগাযোগ করেন এবং নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চান । নিজাম উদ্দিন খান জননেত্রীকে উপজেলার নির্বাচনী আবহাওয়া সম্পর্কে অবহিত করেন।

2874

২২ মার্চ , তৃতীয় ধাপে উপজেলা নির্বাচনের প্রচারণার শেষ দিন । ২৪ মার্চ তৃতীয় ধাপে ১২৭ উপজেলায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে । দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতো জননেত্রী আজ আওয়ামী মনোনীত প্রার্থীদের সাথে ফোনে নির্বাচনের খোঁজ খবর নেন। ২২ মার্চ সকালে জননেত্রী আওয়ামী মনোনীত নড়াইল সদর উপজেলার প্রার্থী নিজাম উদ্দিন খান নিলুর সাথে যোগাযোগ করেন এবং নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চান । নিজাম উদ্দিন খান জননেত্রীকে উপজেলার নির্বাচনী আবহাওয়া সম্পর্কে অবহিত করেন। তিনি নড়াইলে নিয়ে তার স্বপ্নের কথা জানান , অবহেলিত নড়াইলে শিক্ষাক্ষেত্রের অগ্রগতিতে নড়াইল বিশ্ববিদ্যালয় , যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে রাস্তা ব্রীজ কালভার্ট, ক্রীড়ার উন্নয়নের ক্রীড়া কমপ্লেক্স স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে সদর হাসপাতালে আধুনিকীকরণ , পদ্মা সেতু ও মংলা বন্দরকে কাজে লাগিয়ে নড়াইলের শিল্প বিনিয়োগ উপযোগী উপজেলা হিসাবে প্রতিষ্ঠা করে যুবসমাজের কর্মস্থান তৈরি ও বেকারত্ব দূরকরনের মাধ্যমে আধুনিক স্বনির্ভর জেলা হিসেবে নড়াইলকে প্রতিষ্টা করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন ।এসময় নিজাম উদ্দিন খানের প্রত্যয়ী উক্তিতে জননেত্রী ধন্যবাদ জানান এবং নৌকাকে জয়যুক্ত করে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে নিয়ে জনগণের জন্যে নিবেদিত মানুষিকতায় দেশের উন্নয়নে বলিষ্ঠ হবার আহবান জানান ।

Picture2

উল্লেখ ,নিজামউদ্দিন খান নিলু  যিনি শৈশব থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে স্কুল ছাত্রলীগের কমিটিতে সভাপতি নির্বাচিত হন এবং পরবর্তীতে আওয়ামীলীগের দুর্দিনে ছাত্রসমাজকে সংগঠিত করে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। ৯০এর স্বৈরাচারী সরকার বিরোধী আন্দোলনে ছাত্রসমাজের নেতৃত্ব দিয়েছেন। ছাত্রলীগের সভাপতি থাকা অবস্থায় মাত্র ২৫ বছর বয়সে পৌর মেয়র নির্বাচন করেছিলেন । নির্বাচনের পর দেশরত্ন নেত্রী তাকে জেলা যুবলীগের আহবায়ক হিসাবে দায়িত্ব ভার দেন। ৯৯ এর পৌর নির্বাচনে বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত হন এবং নড়াইল সদর পৌরসভাকে মডেল পৌরসভায় রূপান্তর সহ মাত্র দুই বছর ছয় মাসে রাস্তা, ড্রেন, কালভাট সহ পৌরসভার ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয় তাঁর দ্বারা।জেলা যুবলীগের সভাপতি থাকার সময় কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য নির্বাচিত হন তিনি এবং ২০০৪ এ জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব ভার পান। পরবর্তীতে ২০১৫ সালে দেশরত্ন নেত্রী তাকে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসাবে মনোনীত করেন।

প্রিয় নেত্রীর প্রশ্নে তিনি কোন দিন আপোষ করেন নাই। জননন্দিত নেতা জননেতা নিজামউদ্দিন খান নিলুর নেতৃত্বের উপর নেত্রী আস্থা হারাননি কখনোই। তাই তো আসছে আগামী ২৪ শে মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নেত্রী আস্থা রেখেছেন কর্মীবান্ধব সেই নেতৃত্বের উপরই। জননেত্রী তাকেই  নৌকা প্রতীক দিয়ে পাঠিয়েছেন অবহেলিত নড়াইলবাসীর ভাগ্য উন্নয়নে। নড়াইল সদর উপজেলায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী জননেতা জনাব নিজামউদ্দিন খান নিলু দোয়া চেয়েছেন নড়াইল সদর উপজেলাবাসী সহ সর্বস্তরের জনগণের কাছে।