‘প্রেসিডেন্ট পার্কে বিদিশার প্রবেশ অবৈধ’

824

ডেস্ক রিপোর্টঃ
প্রেসিডেন্ট পার্কে বিদিশার প্রবেশকে অবৈধ বলছেন এরশাদের ভাতিজা ও সাবেক সামরিক কর্মকর্তা খালেদ আখতার। সেখানে তার থাকার কোনো অধিকার নেই বলে দাবি করেছেন তিনি।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বারিধারায় এরশাদের বাসভবন প্রেসিডেন্ট পার্কে বিদিশার অবস্থানের কারণে এরিকের জানমালের ক্ষতির শঙ্কা জানিয়ে গুলশান থানায় জিডি করেছেন খালেদ আখতার।

এরশাদের ছোট ছেলে শাহতা জারাব এরিকের দেখভাল নিয়ে মা বিদিশা এরশাদ ও চাচা জি এম কাদেরের পাল্টাপাল্টি বক্তব্যের মধ্যে সামনে এলেন এরিকের দেখভালে গঠিত ট্রাস্টের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান খালেদ।

এর আগে বিকালে বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য খালেদ আখতার বলেন, ‘ট্রাস্টের নিয়ম অনুযায়ী এরিক এরশাদ তার মা বিদিশাকে নিয়ে প্রেসিডেন্ট পার্কে অবস্থান করতে পারবেন না।’
তিনি বলেন, ‘এরিকের এখানে চাওয়ার কোনো এখতিয়ার নাই। এরিকের সমুদয় দায়িত্ব ট্রাস্টের। আপনারা অনুসন্ধান করে দেখেন, এটা তার নিজস্ব বক্তব্য না।’

গত জুলাইতে মৃত্যুর আগে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ তার সমুদয় সম্পত্তি দান করে যান ট্রাস্টে। ছেলে এরিকের দেখভাল করার জন্য এই ট্রাস্ট গঠন করা হয়। ট্রাস্টের সদস্য হিসেবে এরিক আর ভাতিজা খালেদ আখতারকে রাখলেও ভাই জি এম কাদেরকে রাখেননি এরশাদ।

এরশাদের মৃত্যুর পর এরিকের দেখভাল ঠিকমতো হচ্ছে না অভিযোগ এনে গত ১৪ নভেম্বর বিদিশা চলে আসেন প্রেসিডেন্ট পার্কে। এরপর থেকে বারিধারার দূতাবাস রোডের এই বাড়িতেই ছেলের সঙ্গে থাকছেন তিনি।

বিদিশা বলছেন, ‘প্রেসিডেন্ট পার্কের কর্মীরা এরিকের উপর ‘শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন’ করছেন এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি ছেলের কাছে ছুটে আসেন।’

নিরাপত্তা হীনতায় ভুগতে থাকা এরিক এরশাদও তার মায়ের সাথে থাকবেন জানিয়ে গত ১৮ নভেম্বর গুলশান থানায় এক জিডি করেন।