পাল্টাপাল্টি বিমান ও রকেট হামলায় ফের সংঘর্ষে ইসরায়েল ও হামাস

676

 

কয়েক ঘণ্টা বিরতির পর ফের পাল্টাপাল্টি রকেট নিক্ষেপ ও বিমান হামলায় জড়িয়েছে ইসরায়েল ও হামাস।

মঙ্গলবার রাতে গাজা থেকে ছোড়া অন্তত দুটি রকেটের কারণে ইসরায়েলে বিপদ সংকেত বেজেছে বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে জানা যায়।

এর প্রতিক্রিয়ায় ইসরায়েলও ফিলিস্তিনের বেশ কয়েকটি স্থাপনায় বিমান হামলা চালায়।

সোমবার গাজা থেকে ছোড়া রকেটে ৭ ইসরায়েলি আহত হওয়ার পর দুই পক্ষের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ শুরু হয়। পরে ইসরায়েলি বিমান বাহিনীর প্রতিক্রিয়ায় আহত হন ৫ ফিলিস্তিনি।

সংঘর্ষে হামাসসহ ফিলিস্তিনের বিভিন্ন সশস্ত্র সংগঠন ইসরায়েলের দিকে একের পর এক রকেট ছুড়তে থাকে, যার পাল্টায় গাজার বিভিন্ন স্থাপনায় একের পর এক বিমান হামলা চালায় তেল আবিব।

মিশরের মধ্যস্থতায় দুই পক্ষ একটি যুদ্ধবিরতিতে পৌঁছেছে বলে সোমবার রাতে ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারা দাবি করলেও ইসরায়েল তা স্বীকার করেনি।

“যুদ্ধবিরতির কোনো চুক্তি হয়নি, লড়াই যে কোনো মুহুর্তে ফের শুরু হতে পারে,” বলেছেন উর্ধ্বতন এক ইসরায়েলি কর্মকর্তা।

দুইপক্ষের এই পাল্টাপাল্টি দাবির মধ্যে মঙ্গলবার সীমান্ত ছিল বেশ শান্ত। ইসরায়েলি সেনাবাহিনীও সীমান্তে জারি করা ‘নিরাপত্তা নিষেধাজ্ঞা’ সরিয়ে নেয়।

কিন্তু রাত নামার পরপরই পরিস্থিতি বদলে যায়। গাজা থেকে অন্তত দুটি রকেট ছোড়া হয়েছে দাবি করে ইসরায়েলি বিমান বাহিনী গাজায় হামাসের একটি অস্ত্র কারখানা ও সামরিক কম্পাউন্ডসহ বেশ কয়েকটি স্থাপনায় পাল্টা হামলা চালানোর দাবি করে।

দুই পক্ষ ফের সংঘর্ষে জড়ালেও এর মাত্রা আগের দিনের চেয়ে কম ছিল বলে জানিয়েছেন পর্যবেক্ষকরা।