পর্নে আসক্তি বাড়ছে নারীদের!

824

একসময় ছেলেরা পর্নোগ্রাফিতে বেশি আসক্ত থাকলেও এখন এ মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে নারীরা। দিনদিন পর্নোগ্রাফিতে ঝুঁকে পড়ছে তারা। প্রাপ্তবয়স্কদের স্ট্রিমিং সাইটগুলোর বরাতে এ খবর প্রকাশ করেছে স্কাই নিউজ। তারা তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, ইন্টারনেটে বিশ্বের সবচেয়ে বড় পর্নোগ্রাফি সাইট পর্নহাব। সে সাইটের তথ্যমতে, তাদের ভিজিটরদের যাচাই করে বুঝতে পেরেছে ২০১৭ সালে সাইটটিতে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় সার্চ ছিল ‘পর্ন ফর ওমেন’ বা নারীদের জন্য বানানো পর্ন।

পর্নহাব-এর পক্ষ থেকে বলা হয়, ২০১৭ সালে সাইটটিতে মোট ২৪৭০ কোটি সার্চ করা হয়। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি করা হয় ‘পর্ন ফর ওমেন’, আগের বছরের তুলনায় নারী ব্যবহারকারীদের এটি সার্চ করা সংখ্যা ৩৫৯ শতাংশ বেশি। একদম সব মিলিয়ে এই শব্দগুচ্ছ লিখে সাইটটিতে মোট সার্চ করার সংখ্যা বেড়েছে ১৪০০ শতাংশ।

পর্নহাব-এর প্রতিদ্বন্দ্বী সাইট এক্সহ্যামস্টার। তারাও বলছে, নারী ব্যবহারকারীদের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। বিশ্বব্যাপী তাদের নারী ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে ২.৪ শতাংশ। তবে এ তালিকায় সবচেয়ে এগিয়ে আছে দক্ষিণ আফ্রিকা আর সৌদি আরবের নারীরা। সেখানে বৃদ্ধির হার যথাক্রমে ২৩ শতাংশ ও ১১ শতাংশ।

তবে কমেছে চীন আর অস্ট্রেলিয়ায় নারী দর্শকদের সংখ্যা যথাক্রমে ২৮ শতাংশ ও ১৭ শতাংশ কমেছে।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যে সরকার পর্নোগ্রাফিক সাইটগুলোতে বয়স যাচাই আবশ্যক করে দিয়েছে। কিন্তু এই ব্যবস্থা হ্যাকারদেরকে পর্ন দর্শকদের অভ্যাস জেনে তা নিয়ে দর্শকদের ব্ল্যাকমেইলের সুযোগ দিতে পারে বলে দাবি করে বিরোধিতাও করা হচ্ছে। তবে নারীদের পর্নোগ্রাফিতে আসক্তির বাড়ার বিষয়টি বিশেষজ্ঞরা ভালো চোখে দেখছেন না। তাদের মতে, নারীরা পর্নোগ্রাফিতে আসক্তি হয়ে পড়লে পরবর্তী জেনারেশনের ওপর এর প্রভাব পড়বে।