জামায়াতের লোগো পরিবর্তন: ‘আক্বিমুদ্দিন’-এর বদলে লাল সবুজ

1209
জামায়াতে ইসলামীর নতুন লোগো। মঙ্গলবার বিবৃতিতে প্যাডে এই লোগো ব্যবহার করা হয়েছে।

এখন ডেস্ক।।

অনেকটা হঠাৎ করেই নিজেদের লোগো পরিবর্তন করেছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। নিজেদের প্রতিষ্ঠাকালীন ‘আক্বিমুদ্দিন’ (দ্বীন প্রতিষ্ঠা কর) লেখা লোগোর পরিবর্তে দলটি লোগোতে লাল সবুজের ব্যবহার শুরু করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে দলের কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগ থেকে পাঠানো বিবৃতির মধ্য দিয়ে এ বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। বিবৃতির প্যাডে নতুন লোগো ব্যবহার করা হয়। এ ব্যাপারে জানতে চেয়ে প্রচার বিভাগের দায়িত্বশীল কাউকে পাওয়া যায়নি। মেইলে যোগাযোগ করা হলেও কাউকে পাওয়া যায়নি।

তবে কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার সদস্য ও সিলেট দক্ষিণ জেলা জামায়াতের আমির মাওলানা হাবিবুর রহমান  বলেন, দলের নিবন্ধন তো নির্বাচন কমিশনে স্থগিত রয়েছে। ফলে আগের লোগো আমরা ব্যবহার করতে পারছি না। এ কারণে নতুন লোগো।

তবে এই লোগো পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত কবে নেওয়া হয়েছে, এ নিয়ে কোনও উত্তর দেননি এই নেতা। তার ভাষ্য, এটা নীতিনির্ধারকরা জানবেন।

জামায়াতের এই লোগো পরিবর্তনে নতুন নামে আত্মপ্রকাশের বিষয়টি আলোচনায় আসবে বলে মনে করেন জামায়াতের ঢাকা মহানগরীর অনেক কর্মী। তাদের ভাষ্য, অনেকটা হঠাৎ করেই এই লোগো পরিবর্তন।

এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য তামিরুল মিল্লাত মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা যাইনুল আবেদিন  বলেন, আমি এসব বিষয়ে জানি না। দল নতুন নাম নিয়ে আসবে কি না তাও জানি না।

মঙ্গলবার দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের বক্তব্যের বরাত দিয়ে গত ৬ জুন বিবিসিতে প্রচারিত ‘সম্প্রতি সংঘটিত হত্যাকাণ্ডের জন্য জামায়াত-শিবির দায়ী’ এমন প্রতিবেদনের প্রতিবাদ জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য হামিদুর রহমান আযাদ বলেন, যারা ছাত্রশিবির ছিল তারাই হুজি, তারাই জেএমবি ও তারাই আনসারুল্লাহ বাংলাটিম হওয়ার প্রশ্নই আসে না। জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের ভাবমর্যাদা ক্ষুণ্ন করার হীন উদ্দেশ্যেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিবিসিকে মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন। তারা ইতোপূর্বেও বহুবার এ ধরনের মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন এবং আমরা যথারীতি তার প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছি, কোনও হত্যাকাণ্ডের সঙ্গেই জামায়াত ও ছাত্রশিবিরের সম্পর্ক নেই।

বিবৃতিতে দেখা গেছে, জামায়াতের আগের লোগোয় আরবিতে ‘আক্বিমুদ্দীন’ লেখা ছিল। গম্বুজের ভেতরে আল্লাহু শব্দের মধ্যে ‘দাঁড়িপাল্লা’ প্রতীক ছিল। এই দাঁড়িপাল্লাই দলটির নির্বাচনি প্রতীক। আগের প্যাডে কালো রঙে দলের নাম থাকলেও নতুন প্যাডে লাল অক্ষরে নাম ব্যাকগ্রাউন্ড করা হয়েছে। পাশাপাশি প্যাডের ওপরে সবুজ রঙে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী লেখা হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে জামায়াতের কয়েকজন নেতার মোবাইলে কল করা হলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি। এরপর জামায়াতঘরানার বাংলাদেশ মসজিদ মিশনের সেক্রেটারি ড. মাওলানা খলিলুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা জামায়াতের বিষয়। আমি বলতে পারবো না।

জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশন সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, তাদের লোগো পরিবর্তন করার বিষয়ে আমাদের করণীয় নেই। হাইকোর্টের নির্দেশে তাদের রেজিস্ট্রেশন স্থগিত রয়েছে। কিন্তু রেজিস্ট্রেশন বাদে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আমাদের কোনও সম্পর্ক নেই। তো তারা আবার রেজিস্ট্রেশন করার আবেদন করলে এই বিষয়গুলো খতিয়ে দেখা হবে। আদারওয়াইজ আমাদের কিছু করার নেই।

 

সালমান তারেক শাকিল
সিনিয়র রিপোর্টার, বাংলা ট্রিবিউন