শাহ মেরিন রিসোর্ট: ধলেশ্বরীর পাড়ে মায়াবী এক রাত

4067

নগর জীবনে যখন হাঁপিয়ে ওঠে, তখন মনটা ছুটে যেতে চায় প্রকৃতির কাছে। কিন্তু ছকে বাধা সময়ের বেড়াজালে প্রকৃতি ছুঁয়ে দেখার সুযোগ একদমই পাওয়া যায় না। তবে নগর বাসিন্দাদের এমন হাঁসফাঁস জীবনকে খানিকটা সময়ের জন্য সবুজ করে দিতে গড়ে তোলা হয়েছে শাহ মেরিন রিসোর্ট। ঢাকার সীমানা পেরুলেই দেখা মিলবে রিসোর্টটির। সাভার হেমায়েতপুরের পেরিয়ে সিংগাইরে পা রাখলেই চোখে পড়বে সবুজ, সুন্দর একটি গ্রাম। গ্রামের গহীনে, যে জায়গাটা একেবারে নিরিবিলি- নির্জন, সেখানেই মূলত এ রিসোর্টটি। একপাশে ধলেশ্বরী অন্য পাশে সবুজ গ্রাম। নগর থেকে ছাড়া পেয়ে এমন কিছুর দেখা পেয়েই তো মনটা আনন্দে মেতে ওঠে।

40835517_1132075006931432_2898618263510450176_n৪ বিঘা জায়গার ওপর গড়ে তোলা হয়েছে শাহ মেরিন রিসোর্ট। একটি পূর্ণাঙ্গ জাহাজের আদলে গড়ে তোলা হচ্ছে রিসোর্টের মূল ভবন। যেখানে ঢুকলে মনে হবে, জাহাজটি আপনাকে ভাসিয়ে নিয়ে যাবে উত্তাল ঢেউ তোলা সাগরে। রিসোর্টের একপাশে ধলেশ্বরীর জল আছড়ে পড়ে। কান পাতলে শোনা যাবে জলের কলকল শব্দ।

সম্প্রতি তৈরি করা এ রিসোর্টে সুইমিং পুলও আছে। সারাদিন- সারারাতের যখন খুশি তখনই ঝাঁপিয়ে পড়তে পারেন নীল জলে। সাঁতার কেটে ছাড়িয়ে নিতে শরীরের যতো আড়মোড়া। আর যদি চান নদীতে ঘুরে বেড়াতে সে সুযোগও আছে। স্পিডবোট কিংবা ট্রলারে করে ধলেশ্বরী ঘুরিয়ে আনার ব্যবস্থা রয়েছে তাদের। নির্দিষ্ট ভাড়া পরিশোধ করেই ঘুরে আসতে পারেন নদীতে।

অতিথিদের জন্য নানা আয়োজনে সাজানো থাকে এ রিসোর্ট। তার মধ্যে রাতের খাবারে বারবি কিউ একটি। নদীর পাড়ে রাতের এ বারবি কিউ পার্টির কথা একবার চিন্তা করুন তো? কয়লায় পুড়ে নেয়া গরম গরম চিকেন প্লেটে তুলে যখন মুখে পুরবেন, তখন হয়তো গা ছুঁয়ে যাবে ধলেশ্বরী থেকে ভেসে আসা শান্ত বাতাস।

শাহ মেরিন রিসোর্টটি মানুষের অবসর কাটানোর প্রিয় স্থান হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির কর্তাব্যক্তিরা। তাদের মতে, এটি হবে রাজধানীর সবচেয়ে কাছের আকর্ষণীয় ও উন্নত অবকাশ কেন্দ্র।

খরচ:
শাহ মেরিনে একরাত থাকতে হলে আপনাকে গুনতে হবে ৫৬০০ টাকা।
যার মধ্যে পাবেন, বিকেলের নাশতা, রাতের খাবার ও পরদিন সকালের নাশতা।
পাশাপাশি সুইমিং পুল ও স্পোর্টস জোন সুবিধাও থাকছে এর মধ্যে।

আর ট্রলারে চড়তে হলে ঘণ্টা প্রতি ১০০০ টাকা দিয়ে ঘুরে আসা যাবে।

লোকেশান:
হেমায়েতপুর থেকে সোজা চলে যাবেন ধল্লা (ধলেশ্বরী) ব্রিজে। ব্রিজ পেরিয়ে বাঁ দিকে প্রথম যে সরু সড়কটি
চলে গেছে, সেটি দিয়ে এগুলেই পেয়ে যাবেন শাহ মেরিন রিসোর্ট।