পতিতা | সিলভীয়া পান্ডীত

707

পতিতা
সিলভীয়া পান্ডীত

আমি বেশ্যা তাতে তোমার কি?
তোমার শরীর তো আমি বিক্রি
করে খাই না….
এই শরীরটা আমার,
ভাল হলেও আমার
খারাপ হলেও আমার ।
তা তে তোমার কি ক্ষতি ?

আমায় তুমি নস্ট মেয়ে বলো
কোন সাহসে?
তোমার কি নষ্ট করেছি আমি ?
তুমি থাকো তোমার শরীর বাঁচিয়ে ,
তাই তোমার কত অহংকার।
কিন্তু হৃদয় তোমার পাথর।
আমি চলি শরীর বিক্রি করে।
নেই কোন অহংকার,
তাই হৃদয়টা আমার মোমের
মত নরম।

আর তাই তো সবার কষ্টে
আমার চোখে জল আসে,
আর তোমার ?
নেই কারো জন্য মায়া
তুমি বড়ই স্বার্থপর ।

তুমি আমায় বলো বিধাতা নাকি
পুড়িয়ে মারবে আমায় নরকে,
এই কথাটা তুমি বলার কে?
বিচার বড় কঠিন বিধাতার,
সাধ্য নেই আমাদের তা বুঝবার ।

এই তো সেদিন হাতে ছিল তোমার
এক থলি বাজার,
রহিম চাচার ঘরে ছিলনা খাবার ,
জানতে তুমি , কিন্তু গিয়েছিলে কি
খবর নিতে চাচার ?
সাথে নিয়ে একটু বাজার ?
আমি কিন্তু ঠিকই নিয়েছি খবর
যা কিছু খাবার ছিল অল্প
খেয়েছি চাচার সাথে
ভাগ করে ।

সেদিন রহিম চাচার
আমার জন্য এক চোখে
ছিল ঘৃনা ,
আমি পতিতা বলে ।
আর অন্য চোখে ছিল
বুক ভরা ভালবাসা
খাবার দিয়েছি বলে।

তুমি যদি দিতে একটু খাবার
পেতে দুচোখ ভরা ভালবাসা
রহিম চাচার ।
এখন তুমিই বলো কাকে বিধাতা
বাসে বেশি ভাল ?
তোমাকে নাকি এই আমাকে ?

আমি শরীর বিক্রি করি সংসার
চালাতে ,
আর তুমি আমায় বদনাম করো
মুখের স্বাদ জোগাতে ।

এখন তুমি বলো কে বেশী পবিত্র?
আমার পতিতা শরীর
না কি তোমার মনের
নোংরামির ?