একক প্রার্থনা

1100

শাহাদাত হোসেন তৌহিদ:

তোমাকে মনে রাখতে হবে -তুমি সাধক। তোমার কাজ যুদ্ধ করে কোন কিছু উদ্ধার নয়, যুক্তি তর্ক তোমার কাজ নয়, পিছিয়ে পড়া মানুষরাই যুক্তি তর্ক করে। তোমার সকল কিছু অর্জন হবে প্রেম দিয়ে। একান্ত প্রার্থনারত হয়ে। তোমার প্রার্থনায় কাঙ্খিত ব্যক্তি/বস্তুটির সকল মলিনতা, রাগ, ক্ষোভ, অভিমান এক নিমিষেই শেষ হয়ে যাবে। হ্যাঁ, তুমি পেরেছ। ইতিমধ্যে তোমার প্রার্থনায় জগতের সকল সৃষ্টিকুলে নীরবতা নেমে এসেছে। তোমার হৃদয়ের সকল আকুতি, সকল বেদনা দিয়ে, মন প্রাণ উজাড় করে, অদৃশ্য শূন্যলোকে নিজেকে সমর্পন করে, হৃদয় কোমল করে, চোখে মুখে অশ্রু গড়ায়ে তুমি তাকে চেয়েছে।

যেন মক্কা মদিনা মসজিতে আকসা, তুরস্ক, অযোধ্যায়, হিন্দুস্তান, মহাভারতের সব পাহাড় খসে পড়তে শুরু করেছে। থমকে গেছে পৃথিবীর বড় বড় শহরগুলো। তাবৎ প্রাণীকূল তোমার দিকে দৃষ্টিপাত করেছে। সকল নদ-নদী, সপ্ত সমুদ্র, বিস্তৃত আকাশ আর আদিগন্ত ভূমি পাহাড় অরণ্য এবং অযুত-নিযুত পাখির কলতানে ভরে উঠেছে। তোমার মধ্যে যে লক্ষ বাসনা ছুটে চলেছে তা তুমি তাকে জানিয়েছ। আঁধারে তার সামনে বসিয়া কেঁদেছ। সকল অহংকার উড়িয়ে দিয়ে তুমি তার কাছে ছোট হয়েছ। কাঁদতে কাঁদতে অস্থির হয়ে গিয়ে আবারও কেঁদেছিলে। মুখ ফস্কে তোমার মুখে রবি ঠাকুরের বাণীটি উচ্চারিত হয়েছিলো-আমি দেখি নাই কিছু, বুঝি নাই কিছু, দাও হে দেখায়ে বুঝায়ে। সত্যি তুমি যেভাবে চেয়েছো মন থেকেই চেয়েছো এটা দেখে তোমার উপর আমি অভিভূত।

এভাবে তুমি যদি প্রার্থনা চালিয়ে যেতে পার অবশ্যই তোমার কাছে তোমার কাঙ্খিত বস্তু বা ব্যক্তিটি ধরা দেবে। ক্রমেই সে বলে উঠবে- তুমিও আমার হৃদয়ে আছো যেমন তুমি আমার মাঝে। পূণ্য-কিরণ তার স্বচ্ছ মুখে পড়বে। কালো মেঘ অপসারিত হবে। অচিরেই সে বলে উঠবে- তুমি আমার জীবনের অধ্যায়, কি চাও আমার কাছে বলো। যদি ধরা না দেয় তবে তোমাকে বুঝে নিতে হবে তোমার প্রার্থনায় কোন ক্রটি আছে।

লেখক: সংস্কৃতিকর্মী, সাংবাদিক।